"> ‘শক্তিশালী সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলা সম্ভব‍’ ‘শক্তিশালী সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলা সম্ভব‍’ – News vision
  1. admin@newsvision.us : admin :
  2. info@newsvision.us : newsvision :
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৩:১৯ অপরাহ্ন

‘শক্তিশালী সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলা সম্ভব‍’

নিউজ ভিশন ডেস্ক ::
  • পোষ্ট করেছে : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৮ জন দেখেছেন

‘ শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজনে আমন্ত্রণ জানানোয় শেখ হাসিনা

প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে ধন্যবাদ জানান ‘

কোভিড-১৯ মহামারির মতো বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় বিশ্বের শক্তিশালী সম্মিলিত প্রচেষ্টার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “কোভিড-১৯ মহামারি আমাদের শিখিয়ে গেল যে, শুধুমাত্র শক্তিশালী সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমেই বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলা করা সম্ভব।”

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আয়োজিত দুই দিনব্যাপী জলবায়ু সম্মেলনে ভার্চুয়াল লিডার্স সামিটে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। এ সময় ৪০ জন বিশ্ব নেতারা অংশ নেন।

শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজনে আমন্ত্রণ জানানোয় শেখ হাসিনা প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে ধন্যবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে ফিরে আসায় আন্তরিক প্রশংসা করছে বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে কাজ করতে ইচ্ছুক।”

“জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ ও সীমিত সম্পদের দেশ হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশ অভিযোজন ও প্রশমনের ক্ষেত্রে বিশ্ব নেতৃত্ব হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।”

জলবায়ু ইস্যুগুলো সমাধানেও সম্মিলিত প্রচেষ্টার প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “কার্বন নিঃসরণ কমানোর লক্ষ্যে অবিলম্বে এক উচ্চাভিলাষী কর্ম-পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে। যা বৈশ্বিক উষ্ণতা বাড়িয়ে ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে রাখতে সহায়তা করবে। উন্নত দেশগুলোকে কার্বন নিঃসরণ হ্রাসে উচ্চাভিলাষী কর্ম-পরিকল্পনা প্রণয়নের আহ্বান জানাচ্ছি।”

বাংলাদেশ স্থানীয়ভাবেই জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে টেকসইভাবে খাপ খাওয়ানোর বিষয়টি প্রচার করছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “তহবিলের বার্ষিক লক্ষ্যমাত্রা নিশ্চিত করতে হবে ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা অভিযোজন ও প্রশমনের মধ্যে ৫০ অনুপাত ৫০ ভারসাম্য বজায় রাখবে। এর মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকিপূর্ণ সম্প্রদায়গুলোর ক্ষয়-ক্ষতি পূরণে বিশেষ দৃষ্টি দেবে।”

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দুর্যোগ মোকাবিলায় টেকসই জলবায়ু সহনশীল ব্যবস্থা গড়ে তুলতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণে বাংলাদেশ প্রায় ২ দশমিক ৫ শতাংশ বা প্রায় ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয় করেছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “ন্যাশনালি ডিটারমাইন্ড কন্ট্রিবিউশন-এনডিসি বৃদ্ধিতে কাজ করছি। জলবায়ুর পরিবর্তন সহনীয় টেকসই পদক্ষেপ গ্রহণে আমরা বিদ্যমান জ্বালানি, শিল্প ও পরিবহন খাতের পাশাপাশি নতুন খাত অন্তর্ভূক্ত করেছি। এভাবে আমরা কার্বন হ্রাসের পদক্ষেপ নিয়েছি। এছাড়াও ২০২১ সাল নাগাদ উচ্চাভিলাষী এনডিসি পেশের পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে।”

মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যূত প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নেওয়ায় বাংলাদেশের পরিবেশ অধিকতর ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলদেশের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, “বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপনের অংশ হিসাবে দেশব্যাপী ৩০ মিলিয়ন চারা রোপণের পরিকল্পনা করেছে।”

এছাড়াও কম-কার্বনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে ‘মুজিব ক্লাইমেট প্রোসপারিটি প্ল্যান’ প্রণয়নের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 News Vision LTD It's a TM Registered News Organization
Design & Development Freelancer Zone